1. info@www.prothomdhaka24.com : প্রথম ঢাকা :
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৯:৩৫ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
গোবিন্দগঞ্জে অটোচালক দুলা মিয়া হত্যার মূল আসামি গ্রেফতার ঈদে চুরির সতর্কতায় ও নিরাপত্তা দিতে ঢাকা কেরানীগঞ্জ পুলিশ । টেকনাফে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের আগুনে পুড়ে ছাই বসত ঘর উখিয়া পালংখালীর জামতলী বাজার হতে র‌্যাবের হাতে অস্ত্র-গুলিসহ এক আরসা সন্ত্রাসী আটক। রাজধানীর মতিঝিল এলাকা হতে আনুমানিক ছয় লক্ষাধিক টাকা মূল্যমানের হেরোইনসহ ০২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ জেলার সেরা সম্মাননা পেলেন পানছড়ির থানার ওসি শফিউল আজম ঘোলারচরে বিজিবির অভিযানে নৌকার পাটাতনের নীচ থেকে ৩০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার, আটক-১ মায়ানমারে আভ্যন্তরীন যুদ্ধে ব্যাপক খাদ্যসংকট এপার থেকে পাচার হচ্ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রীওপার থেকে আসছে ভোলা জেলার লালমোহন এলাকায় চাঞ্চল্যকর পারভিন বেগম (৩৭) হত্যাকান্ডের পলাতক প্রধান আসামি মোঃ রিপনসহ হত্যাকান্ডে সরাসরি জড়িত ০৩ জনকে কিশোরগঞ্জ জেলার সদর এলাকা হতে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ বুড়িমারী এক্সপ্রেস বামনডাঙ্গা’য় যাত্রা বিরতির দাবিতে গণ অবস্থান ও মানববন্ধন।

হাঁস- মুরগীর খামার করে দিনমজুর জামাল কোটিপতি

মোঃ রিয়াদ হাসান
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৪৫ বার পড়া হয়েছে

নিভৃত গ্রামের জামাল হোসেন ভোলা (৫০)। একসময় দিনমজুর ছিলেন। তা দিয়ে সংসার যেন নুন আনতে পান্তা ফুরায়। এরপর দরিদ্রের এই কষাঘাত থেকে বাঁচতে হাঁসের খামারের পরিকল্পনা নেয়। ঠিক যেমন স্বপ্ন তেমন কাজ। মাত্র ২০টি হাঁস দিয়ে শুরু করেন খামারের যাত্রা। এ থেকে ধীরে ধীরে তিনি এখন কোটিপতি।

 

সংগ্রামী এই উদ্যোক্তা জামাল হোসেন ভোলার বাড়ি গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের রামভদ্র গ্রামে। সম্প্রতি এ গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে তার খামারের চিত্র। শুধু হাঁসের খামারই না, আরও রয়েছে ডেইরি, মৎস্য ও পোল্ট্রি খামার। এসব খামারের কর্মসংস্থান হয়েছে অনেকের।

 

জানা যায়, জামাল হোসেন ভোলা ১৯৮৪ সালে ২০টি হাঁস কিনেন। সেই হাঁস দিয়ে যাত্রা শুরু খামারের। পর্যায়ক্রমে মাছ চাষ, মুরগী ও গরুর খামার গড়ে তোলেন। পাশাপাশি হার্ডওয়ার ও পোল্ট্রি খাদ্যের ব্যবসাও করেন। কিনেছেন প্রায় ৮-৯ বিঘা জমি। ছয় ছেলে মেয়েকে লেখাপড়া করাচ্ছেন। মেধা ও পরিশ্রমে জীবনের ব্যবধানে দিনমজুর থেকে তিনি এখন কোটিপতি।

 

উদ্যোক্তা জামাল হোসেন ভোলা জানান, বর্তমানে তার ১ একর ৫২ শতক জমিতে রয়েছে পুকুর। সেই পুকুরে মাছ চাষ করেছেন। পুকুরের উপরে মুরগীর সেড। সেডের পাশেই গরুর খামার। খামারে রয়েছে ১ হাজার ২০০টি মুরগী। প্রতিদিন ডিম পাচ্ছেন ১ হাজার ১০০টি। ডিম বিক্রি করে মাসিক প্রায় ৫০ হাজার টাকা ও মাছ বিক্রি করে সাড়ে ১২ হাজার টাকা আয় হচ্ছে। আরও আয় হচ্ছে ব্যবসা থেকেও। ভবিষ্যতে একটি মডেল খামার গড়ে তুলবেন। যা দেখে খামার করতে মানুষ উদ্বুদ্ধ হবে বলে তার স্বপ্ন।

 

সুন্দরগঞ্জ উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে জানা যায়, উপজেলায় বাণিজ্যিকভাবে ২১০টি গরুর খামার, ১৫০টি ছাগলের খামার, ৬০টি ভেড়ার খামার, ৩৮টি হাঁসের খামার ও ২৩৯টি মুরগীর খামার রয়েছে। খামারকে কেন্দ্র করে উপজেলায় প্রায় ২৫টি ডিমের আড়ৎ, প্রায় ২৫০টি গরু-ছাগল ও হাঁস-মুরগীর খাদ্য বিক্রির দোকান গড়ে উঠেছে। এসবের মধ্যে জামাল হোসেন ভোলা অন্যতম একজন খামারী।

 

সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তরিকুল ইসলাম বলেন, গরু-ছাগল ও হাস-মুরগী পালনে উপজেলার অর্থনীতিকে চাঙ্গা করেছে। এই ‍ শিল্পের প্রসারে খামারীদের ঋণ সহায়তার ব্যবস্থা করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট